Home Uncategorized পাকিস্তানে ফের ভাঙা হল মন্দির, ২০ দিনের মধ্যে এই নিয়ে তৃতীয়বার মন্দিরে...

পাকিস্তানে ফের ভাঙা হল মন্দির, ২০ দিনের মধ্যে এই নিয়ে তৃতীয়বার মন্দিরে ভাংচুরের ঘটনা

পাকিস্তানের সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর অত্যাচার প্রতিনিয়ত বেড়েই যাচ্ছে।সিন্ধু প্রদেশের নির্বিচারে হিন্দু ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দেয়ার ঘটনার জের কাটতে না কাটতেই এবার করাচির একটি প্রাচীন হিন্দু মন্দির ভেঙে দিল উগ্রপন্থী মৌলবাদীরা।ঘটনাটি ঘটেছে পাকিস্তানের করাচি শহরের ভীমপুরার লী মার্কেট এলাকায়।

পাকিস্তানের মানবাধিকার কর্মী রাহত অস্টিন ট্যুইট করে খবরটি জানিয়েছেন। তিনি জানান যে, বিগত ২০ দিনের মধ্যে এই নিয়ে তৃতীয়বার মন্দিরে ভাংচুরের ঘটনা ঘটেলো। এর সাথে তিনি প্রশ্নও তুলেছেন যে, পাকিস্তানিরা ফ্রান্সে নিজের ধর্মের প্রতি অবমাননার প্রতিবাদে সোচ্চার হয়ে ‘বয়কট ফ্রান্স’ প্রতিবাদ জানাচ্ছে, , অথচ এই পাকিস্তানিরাই আবার সংখ্যালঘু হিন্দুদের উপর অমানবিক অত্যাচার চালাচ্ছে।তাছাড়া একটি ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছে,ভিডিওটিতে কিছু কিছু কট্টরপন্থীদের হিন্দু মন্দিকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে।

মন্দিরের নিকটে বসবাসকারী হিন্দু সম্প্রদায় এই ঘটনার জন্য ক্ষোভ প্রকাশ করেছে এবং দোষীদের বিরুদ্ধে শীঘ্রই ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছে।হিন্দু সম্প্রদায় বলেছে যে এ জাতীয় ঘটনাগুলি গ্রহণযোগ্য নয় এবং সরকারের উচিত অপরাধীদের গ্রেপ্তার করা।

উল্টো দিকে অভিযোগ অস্বীকার করে এই ঘটনায় ধর্মীয় চরমপন্থীরা হিন্দুদের উপরই সব দোষ চাপানোর চেষ্টা করে। তারা এক হিন্দু কিশোরের উপর পয়গম্বর মহম্মদকে অপমান করার অভিযোগ তুলে, যার সত্যতা নিয়ে যথেষ্ট প্রশ্ন রয়েছে। আর পয়গম্বরের অপমানের প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য ধর্মবিশ্বাসী কট্টরপন্থীরা এই কাজ করেছে বলে জানিয়েছে। যদিও স্থানীয় হিন্দুরা জানিয়েছে যে, কট্টরপন্থীদের দ্বারা করা সমস্ত অভিযোগ যুক্তিহীন ও ভিত্তিহীন।

উল্লেখ্য যে পাকিস্তানের ইমরান খান সরকার দেশের সংখ্যালঘু হিন্দুদের সুরক্ষা দিতে পুরোপুরি ব্যর্থ এবং চরমপন্থীদের নিয়ন্ত্রণ তার হাতের বাইরে।এই পাকিস্তান সরকার‌ই আবার ফ্রান্সের সমালোচনায় বারংবার মুখর হয়ে উঠেছে। অথচ সংখ্যালঘু হিন্দুদের ওপর যে অমানবিক অত্যাচার চলছে সেই বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী নীরব।