Home Uncategorized চালবাজ চীনের হাত থেকে মুক্তি! অবশেষে সুরক্ষিত বাড়ি ফিরল অরুণাচল প্রদেশ থেকে...

চালবাজ চীনের হাত থেকে মুক্তি! অবশেষে সুরক্ষিত বাড়ি ফিরল অরুণাচল প্রদেশ থেকে অপহৃত পাঁচ কিশোর

কিছুদিন আগেই অরুণাচল প্রদেশের আপার সুবানসিরি জেলার নাচো এলাকা পাঁচ কিশোরকে অপহরণ করেছিল চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি। শনিবার তাঁদের ভারতীয় সেনার হাতে তুলে দিল চিন।

সম্প্রতি গত ৪ সেপ্টেম্বর জঙ্গলে একসঙ্গে শিকারে গিয়ে অরুণাচল প্রদেশের ভারত-চিন সীমান্তে উচ্চ সুবানসিরি জেলা থেকে পাঁচ যুবক নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিলেন। বাকি দু’জন ফিরে এসে পরিবারকে জানান, নাচো এলাকার সেরা ৭ নম্বর পেট্রোলিং পয়েন্ট থেকে পাঁচজনকে অপহরণ করে নিয়ে গিয়েছে চিনা সেনা।তারপর সেই ঘটনার তদন্ত শুরু করে অরুণাচল প্রদেশের পুলিশ। এরপর ভারতীয় সেনা থেকে হটলাইনে এই কিশোরদের ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য চীনের সেনার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। প্রথমে অস্বীকার করলেও, পরে চাপে পড়ে চীন জানায়, ওই পাঁচ কিশোর তাদের হেফাজতে রয়েছে। সীমান্ত পেরিয়ে চিনা ভূখণ্ডে ঢুকে পড়ায় তাদের আটক করা হয়েছিল এবং তাদের ফেরানোর জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রস্তুত করা হচ্ছে। শেষ পর্যন্ত শনিবার এই পাঁচ কিশোরকে ভারতীয় সেনার হাতে তুলে দিল চীন।

শুক্রবার অসমের তেজপুরে জনসংযোগ আধিকারিক (প্রতিরক্ষা) লেফটেন্যান্ট কর্নেল হর্ষবর্ধন পাণ্ডে বলেন, ‘যাবতীয় প্রয়োজনীয় কাজকর্মের পর ২০২০ সালের ১২ সেপ্টেম্বর কিবিথুতে পাঁচজনকেই নিজেদের দায়িত্বে নিয়েছে ভারতীয় সেনা।’ তবে এখনও বাড়ি ফেরা হচ্ছে না ওই পাঁচ যুবকে। করোনাভাইরাস বিধি মেনে তাঁদের ১৪ দিনের নিভৃতবাস বা কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। তারপর তাঁরা বাড়ি ফিরতে পারবেন।

সেনার তরফে বলা হয়েছে, ‘নিখোঁজ স্থানীয়দের সন্ধান পেতে এবং তাঁদের বাড়ি ফিরিয়ে আনতে বরাবর সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছে ভারতীয় সেনা। এই ঘটনাটি-সহ উচ্চ সুবানসিরি এবং পশ্চিম সিয়াং জেলায় চলতি বছর এরকম তৃতীয় ঘটনা ঘটেছে। অতীতে ভারতীয় সেনার লাগাতার প্রচেষ্টা এবং সমন্বয়ের মাধ্যমে তাঁদের সবাইকে সুরক্ষিতভাবে বাড়ি ফিরিয়ে আনা হয়েছে।’

শুক্রবার অরুণাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী পেমা খান্দু টুইট করে জানান, চীনা সেনা শেষ পর্যন্ত ওই পাঁচ কিশোরকে ভারতীয় জওয়ানদের হাতে তুলে দিয়েছে। পাঁচ জন কিশোর অক্ষত রয়েছেন বলে তিনি জানান। তাছাড়াও ভারতীয় সেনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে অরুণাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী আরও জানিয়েছেন পাঁচ জন কিশোর অপহৃত হওয়ার পর ভারতীয় যেভাবে তাদের ফিরিয়ে আনার জন্য তৎপর হয়েছিল তার জন্য ধন্যবাদ‌ও জ্ঞাপন করেছেন তিনি।