Home National নাগাল্যান্ড উপনির্বাচন: কোভিড -১৯ প্রোটোকল মেনে ভোটদান, রাজ্যে সর্বাধিক ভোটদানের রেকর্ড

নাগাল্যান্ড উপনির্বাচন: কোভিড -১৯ প্রোটোকল মেনে ভোটদান, রাজ্যে সর্বাধিক ভোটদানের রেকর্ড

Source: Prasar Bharati

মঙ্গলবার সকাল ৬ টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত নাগাল্যান্ডের দুটি বিধানসভা আসনের উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। উভয় আসনে বিপুল সংখ্যক ভোটাররা ভোটদান করেন ।মঙ্গলবার দক্ষিণ আংগামী-১ আসনে ভোটগ্রহণের হার ৮৪.৪১% রেকর্ড করা হয়েছে, এবং পুংরো কিফায়ার আসনে ভোটের শতাংশ ৮৯.৮০% রেকর্ড করা হয়।সাধারণদের পাশাপাশি প্রার্থীরাও ভোট দেওয়ার জন্য মুখরিত হন।উভয়ই দলের নেতারাই ভোটগ্রহণে ভোট দেওয়ার পরে এই নির্বাচনে জয়লাভের আস্থা ব্যক্ত করেছেন।

প্রধান নির্বাচনী কর্মকর্তা (সিইও) অভিজিৎ সিনহা জানিয়েছেন, ৫৫ শতাংশের বেশি ভোটাররা দুপুর ২ টা অবধি তাদের ভোট দিয়েছেন। মঙ্গলবার নাগাল্যান্ডের দুটি বিধানসভা আসনে উপনির্বাচনের জন্য নির্বাচন কর্তৃপক্ষ বিস্তৃত সুরক্ষা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে এবং কোভিড -১৯ প্রোটোকলগুলির কঠোরভাবে অনুসরণ নিশ্চিত করেছে।

উপনির্বাচনের জন্য পর্যাপ্ত সুরক্ষা ব্যবস্থা করা হয়েছিল, উভয় নির্বাচনী এলাকায় প্রায় ৬০০ জন পোলিং কর্মী নির্বাচনের দায়িত্বে ছিলেন। মোটামুটি পুরো নির্বাচন প্রক্রিয়া সফল হয়েছে, তবে উভয় নির্বাচনী এলাকা থেকে কয়েকটি ঘটনারও খবর পাওয়া যায়। ক্ষমতাসীন দলের উপদেষ্টাদেরও তাদের প্রার্থী সহ ভোটকেন্দ্র পরিদর্শন করতে দেখা গেছে যা স্পষ্টভাবে আচরণবিধির লঙ্ঘন হিসাবে দেখা যায়।

দক্ষিণ আঙ্গামিতে চলমান উপ-নির্বাচনের মধ্যে, জখামা গ্রাম ভোটকেন্দ্রে এনপিএফ এবং এনডিপিপির সমর্থকদের মধ্যে ঝগড়া শুরু হয় যা একটি ঝুঁকিপূর্ণ পোলিং বুথ বলে গণ্য করা হয়।

আজ সকালে এনপিএফ ও এনডিপিপির দলীয় কর্মীদের মধ্যে দক্ষিণ আঙ্গামি -১ বিধানসভা কেন্দ্রের আওতাধীন জখামা পোলিং স্টেশন ১-এ এ নিয়ে বিরোধ শুরু হয়। ঘটনার খবর পাওয়ার সাথে সাথে কোহিমা জেলা প্রশাসক ও পর্যবেক্ষকসহ কোহিমা এসপি পরিস্থিতি সন্ধানের জন্য ঘটনাস্থলে পৌঁছয়।

অন্যদিকে, এনপিএফ সমর্থকরা অভিযোগ করেছেন যে ভোটগ্রহণের সময় অন্যান্য নির্বাচনী এলাকার বিধায়কদের নির্বাচনী এলাকা পরিদর্শন করার অনুমতি নেই। এ সত্বেও নির্বাচন চলাকালীন এনডিপিপির উপদেষ্টা ঝালেও রিও উপস্থিত ছিলেন যা সরাসরি আচরণবিধির অবমাননা।

এব্যাপারে সেক্টর ম্যাজিস্ট্রেট টিয়াঙ্গার জামির বলেছেন, কোহিমা এসপি এবং ডিসির হস্তক্ষেপের পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে। জামির আরও জানান, এনডিপিপির উপদেষ্টা ঝালেও রিও আচরণবিধি লঙ্ঘন করার পরে বিশৃঙ্খলা ছড়িয়ে পড়ে।

উল্লেখ্য যে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশিকা অনুসারে, কোনও ব্যক্তি রাজনীতিবিদ যদি সেই নির্দিষ্ট নির্বাচনী এলাকা থেকে না থাকে তবে ভোটকেন্দ্র পরিদর্শন করার কথা নয়।

Picture Courtesy: Prasar Bharati