Home International আন্তর্জাতিক মহলে নতুনভাবে চক্ষুশূল পাকিস্তান!কুখ্যাত জঙ্গি নেতাকে গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলে দাবি পাকিস্তানের।

আন্তর্জাতিক মহলে নতুনভাবে চক্ষুশূল পাকিস্তান!কুখ্যাত জঙ্গি নেতাকে গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলে দাবি পাকিস্তানের।

জঙ্গি দমন করার পাকিস্তানের দাবি আবার ধাক্কা খেল বিশ্বমঞ্চে। পাকিস্তানের গোয়েন্দা অধি দপ্তরের নতুন নথিতে বলা হয়েছে, যে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন হিজবুল মুজাহিদিন এবং ইউনাইটেড জিহাদ কাউন্সিলের প্রধান সৈয়দ সালাহউদ্দিন আইএসআই-র সঙ্গে কাজ করছে। নথিতে তাঁকে রীতিমতো আধিকারিক হিসবে উল্লেখ করা হয়েছে। ইসলামাবাদের এই নথি অনুযায়ী, হিজবুল মুদাহিদ্দিনের জঙ্গি নেতা সালাহউদ্দিনকে আইএসআই-এর শীর্ষপদে বসানো হয়েছে। যার অর্থ ইমরান সরকারের গুপ্তচর বিভাগে এখন অফিসার হিসাবে জঙ্গিদের নিযুক্ত করা হচ্ছে।একজন জঙ্গিকে গুপ্তচর বিভাগে নিয়োগ করার ঘটনায় ফের বিপাকে পড়েছে ইসলামাবাদ।

পাকিস্তানের এই নথি বলছে, সালাহউদ্দিনের নিরাপত্তা ছাড়পত্র রয়েছে। তাই তাকে কোনও চেকপয়েন্টে অহেতুক আটকানো যাবে না। এই মর্মে ডিরেক্টর তথা কমান্ডিং অফিসার ওয়াজাহাত আলি খানের সই করা একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে লেখা হয়েছে, ‘টয়োটা ল্যান্ড ক্রুজার, যাতে তিনি যাতায়াত করে, সেটিকে সুরক্ষা বিধির অনুমোদন দেওয়া আছে। তিনি এই বিভাগের আধিকারিক। তাই তাকে অহেতুক চেক পয়েন্টে আটকানো যাবে না।” নতুন পদ পাওয়ার পর থেকে সালাহউদ্দিনের জন্যে পাকিস্তানে চালু হয়েছে নতুন নিয়ম। এবার থেকে সালাহউদ্দিন যে গাড়িতে যাতায়াত করবেন, সেটিকে সুরক্ষা বিধির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। তাই তাকে অহেতুক চেক পয়েন্টে আটকানো যাবে না। সালাহউদ্দিনকে ঘিরে ওই নির্দেশিকা ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ পর্যন্ত লাগু থাকবে বলেও জানা গিয়েছে।

এই হিজবুল প্রধানকে ভারত ও আমেরিকার মতো দেশ সন্ত্রাসবাদী বলে পরিচয় করিয়ে এসেছে বিশ্ব দরবারে। উল্লেখ্য যে কাশ্মীরে একের পর এক সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ আরও বাড়িয়ে চলেছে সালাহউদ্দিন। লস্কর ও জইশকে সঙ্গে নিয়ে ইউনাইটেড জিহাদ কাউন্সিল চালু করেছে সালাহউদ্দিন। সেই জিহাদ কাউন্সিলের প্রধান এই সালাহউদ্দিন। আর তাকেই কিনা গুপ্তচর সংস্থার গুরুত্বপূর্ণ পদ দিল পাকিস্তান।

সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য গত জুন মাসে ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স (FATF) পাকিস্তানকে পরবর্তী পূর্ণাঙ্গ বৈঠক পর্যন্ত সময়সীমা দিয়েছে। পাকিস্তানকে অ্যাকশন প্ল্যান মেনে চলার জন্যও পরামর্শ দিয়েছিল ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স। কিন্তু তারপরেও পাকিস্তানের এই পদক্ষেপ নিল ।ফলে সন্ত্রাস দমনের নামে পাকিস্তানের নাটক প্রকাশ্য হল বিশ্বমঞ্চে।